বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:৪৬ পূর্বাহ্ন

ফুলছড়িতে বিদ্যমান করোনা পরিস্থিতিতে পুষ্টি সংকট মোকাবিলায় ৬ হাজার পেঁপে চারা রোপন

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম / ১৭ পাঠক
বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:৪৬ পূর্বাহ্ন

সিরাজুল ইসলাম রতন, বর্তমানকন্ঠ ডটকম, গাইবান্ধা : বিদ্যমান করোনা পরিস্থিতি দীর্ঘায়িত হলে মানুষ খাদ্য ও পুষ্টি সংকটে পড়তে পারে। সম্ভাব্য সেই সংকট মোকাবিলায় অগ্রিম প্রস্তুতি হিসেবে গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলায় ফুড ব্যাংকের উদ্যোগে স্বেচ্ছাসেবকদের মাধ্যমে একযোগে ছয় হাজার পেঁপের চারা রোপন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১ টা পর্যন্ত এসব চারা রোপন করা হয়। বন্যা আর নদী ভাঙনে বিপর্যস্ত ফুলছড়ি উপজেলার দুই লক্ষাধিক মানুষের মধ্যে অধিকাংশ মানুষের সংসারে অভাব অনটন লেগেই থাকে। এ উপজেলার বেশিরভাগ মানুষ শ্রমজীবি। বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসের প্রভাব পড়েছে ফুলছড়ি উপজেলার খেটে খাওয়া শ্রমজীবি মানুষের মাঝে। লকডাউনের কারণে শ্রমজীবি মানুষগুলো ঘরবন্দী হয়ে থাকায় তাদের মধ্যে খাদ্যাভাব দেখা দিয়েছে।

খাদ্যের চাহিদা পূরণে ফুলছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু রায়হান দোলনের নেতৃত্বে গঠন করা হয় ফুড ব্যাংক ও স্বেচ্ছাসেবক টীম। ফুড ব্যাংকে বিত্তবানরা সাহায্য সহযোগিতা অব্যাহত রেখেছেন। ইতিমধ্যে ফুলছড়ি ফুড ব্যাংকের মাধ্যমে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের ১৬‘শ অধিক পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। এরমধ্যে ছিল ১০ কেজি চাল, এক কেজি ডাল, এক কেজি লবণ, দুই কেজি আলু। এর পাশাপাশি সুবিধাভোগীদের বাড়ির আশেপাশে লাগানোর জন্য পাঁচ প্রকার শাকসবজির (পুই শাক, লাউ, মিষ্টি কুমড়া, ঢেঁড়স ও ধুন্দল) বীজ সরবরাহ করা হয়েছে।

করোনা ভাইরাসের কারণে খাদ্য ও পুষ্টি সংকট মোকাবিলায় এবার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে ফুড ব্যাংকের মাধ্যমে উপজেলায় একযোগে ছয় হাজার পেঁপে চারা রোপন করা হবে। বৃহস্পতিবার (২৩ এপ্রিল) সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১ টা পর্যন্ত এসব চারা রোপন করা হয়। এদিন উপজেলার উদাখালী ইউনিয়নের দক্ষিণ বুড়াইল গ্রামে পেঁপে চারা রোপনের উদ্বোধন করেন গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক আবদুল মতিন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ফুলছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু রায়হান দোলন, ফুলছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ কাওছার আলী সহ স্বেচ্ছাসেবকবৃন্দ।

ফুলছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু রায়হান দোলন বলেন, বিদ্যমান করোনা পরিস্থিতি দীর্ঘায়িত হলে মানুষ খাদ্য সংকটে পড়তে পারে। এক্ষেত্রে স্বল্প সময়ে পুষ্টিসমৃদ্ধ খাবার নিশ্চিতকরনে শাক-সবজি উৎপাদনের বিকল্প নেই। এই বিবেচনায়, খাদ্য সহায়তার পাশাপাশি করোনা পরিস্থিতিতে খাদ্য ও পুষ্টি চাহিদা পূরণের প্রেক্ষিতে ফুলছড়ি ফুডব্যাংক খাদ্য সহায়তার পাশাপাশি ৫‘শ পরিবারকে দ্রুত উৎপাদনশীল পাঁচ ধরণের শাক-সবজির বীজ সরবরাহ করা হয়েছে।

বীজ সরবরাহের এ উদ্যোগ বিদ্যমান সরকারী সহায়তা কার্যক্রমেও বিস্তারিত ঘটানো হচ্ছে। এজন্য ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে খাদ্য সহায়তার সাথে বীজ সরবরাহ করা হবে। তিনি বলেন, পেঁপে একই সাথে সবজি এবং পুষ্টিকর ফল। তাই সামগ্রিক পুষ্টি চাহিদা পুরনের কথা বিবেচনা করে ফুলছড়ি ফুডব্যাংকের উদ্যোগে স্বেচ্ছাসেবকটীমের মাধ্যমে উপজেলার উঁচু এলাকাগুলোতে একযোগে ছয় হাজার পেঁপের চারা রোপন করা হলো।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *