বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৬:২৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম-
গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহত আরও ৩৮ ফিলিস্তিনি জেলেনস্কির হোমটাউনে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহত ৯ বিমান দুর্ঘটনায় ভাইস প্রেসিডেন্ট নিহত: মালাবিতে ২১ দিনের শোক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান হত্যা: বিচারের দাবীতে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে মহাসড়ক অবরোধ মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার অস্থিরতাকারীদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর হুঁশিয়ারি নাগরিক সমস্যা সমাধানে সরকার ও নাগরিকের অংশীদারিত্ব প্রয়োজন: তথ্য প্রতিমন্ত্রী বিনা কর্তনে সেন্সর ছাড়পত্র পেল ‘মুনাফিক’ আমাদের দিয়ে রান্না করাতো জলদস্যুরা, খেয়ে ফেলতো সবই যাতায়াতের দুর্ঘটনায় ক্ষতিপূরণ পাবে পোশাক শ্রমিকরা আলোচিত সংগীতশিল্পীসহ নিহত ২, পালিয়েও শেষ রক্ষা হয়নি বাসচালকের

বাঘায় লাল মাফলার দেখিয়ে ট্রেন রক্ষা করল ২ শিশু!

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম / ৩৮ পাঠক
বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৬:২৬ পূর্বাহ্ন

বাঘা (রাজশাহী),বর্তমানকণ্ঠ ডটকম,সোমবার,১৮ ডিসেম্বর ২০১৭: রেললাইনে ত্রুটি দেখে ঠাণ্ডা নিবারণের লাল মাফলার দেখিয়ে একটি তেলবাহী ট্রেনকে দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা করেছে দুই শিশু।

সোমবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী স্টেশনের কাছে এ ঘটনা ঘটে।

স্টেশনের ৪০০ মিটার পূর্ব দিকে ঝিনা রেলগেটে লাইন ভাঙা দেখে দুই শিশু উপস্থিত বুদ্ধির জোরে ট্রেনটিকে থামিয়ে দেয়।

আড়ানী স্টেশনে কর্মরত মাস্টার নয়ন আহম্মেদ জানান, তেলবাহী ট্রেনচালক কেএম মহিউদ্দিন দুই শিশুর মাফলার দিয়ে সিগন্যাল লক্ষ্য করেন। এর পর তিনি ট্রেন থামিয়ে দেন।

এ কারণে দুই ঘণ্টা রাজশাহীর সব ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকে। পরে রাজশাহী রেলওয়ের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে রেললাইন মেরামত করলে আবার ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

মাফলার দিয়ে ট্রেন থামানো সেই দুই শিশু ঝিনা গ্রামের সুমন হোসেনের ছেলে সিহাব হোসেন (৬) ও একই গ্রামের মহিদুল ইসলামের ছেলে টিটোন ইসলাম (৭)। শিহাব প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী ও টিটোন দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ে।

তারা জানায়, তারা পাশের এক ক্ষেত থেকে বাড়ি ফিরছিল। এ সময় দেখে রেললাইন ভাঙা। এ সময় ট্রেন আসতে দেখে তারা লাল মাফলার দিয়ে ট্রেন থামানোর চেষ্টা করে।

ট্রেনচালক কেএম মহিউদ্দিন বলেন, খুলনা থেকে রাজশাহীতে নিয়ে আসা হচ্ছিল তেল। পথে আড়ানী স্টেশনের একটু দূরে ঝিনা রেলগেট এলাকায় লাইনে ওই দুই শিশু মাফলার দিয়ে সিগন্যাল দেয়।

তিনি বলেন, প্রথমে ভাবলাম থামব না, এর পরও ট্রেন নিয়ন্ত্রণ করে ভাঙা স্থান থেকে ২০ মিটার দূরে ট্রেন থামালাম। ট্রেন থেকে নেমে দেখি রেললাইন ভাঙা। পরে আড়ানী স্টেশনের মাস্টার নয়ন আহম্মেদকে জানানো হয়। এর দুই ঘণ্টা পর আবার ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

তেলবাহী ট্রেনের পরিচালক আরশেদ আলী জানান, হঠাৎ ট্রেন থামিয়ে দেয়ার কারণে চালকের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেছিলাম। পরে দেখি রেললাইন ভাঙা। পরে কর্তৃপক্ষকে জানানোর পর তা মেরামত করা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *