মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ০৪:৪৭ অপরাহ্ন

মাধবদীতে টেক্সটাইল মিলে অগ্নিকান্ডে ৫ কোটি টাকার মালামাল ভষ্মীভূত

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম / ৪৫ পাঠক
মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ০৪:৪৭ অপরাহ্ন

খন্দকার শাহিন,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম,রোববার, ১৪ জানুয়ারী ২০১৮: শিল্প শহর নরসিংদীর মাধবদীতে কল্যান্দী টেক্সটাইল ডাইং প্রিন্টিং এন্ড ফিনিশিং মিলস নামে একটি প্রতিষ্ঠানে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এতে কয়েক লাখ গজ কাপড়সহ মূল্যবান মেশিনারিজ ভষ্মীভূত হয়ে প্রায় ৫ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে মিল কর্তৃপক্ষের দাবী।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ১৪ জানুয়ারি রবিবার ভোরে মিলটিতে সংরক্ষিত কাপড়ের স্তুপে শ্রমিকরা হঠাৎ আগুন দেখতে পেয়ে তাৎক্ষণিক ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়। মুহূর্তেই আগুনের লেলিহান শিখা পুরো মিলে ছড়িয়ে পড়ে। খবর দেয়ার প্রায় ৪০ মিনিট পর মাধবদী ও নরসিংদী ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিয় ঘটনাস্থলে পৌঁছে। প্রায় ৩ ঘন্টা চেষ্টার পর তারা আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়।

মিলের ম্যানেজার মফিজ উদ্দিন জানান, কর্মরত শ্রমিকরা সাড়ে ৪ টায় হঠাৎ কাপড়ের মধ্যে আগুনের লেলিহান শিখা দেখতে পায়, পরে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়া হলেও তাদের দেরী করে আসার কারনে আগুন ভয়াবহ রূপ ধারণ করে। এতে মিলে সংরক্ষিত কয়েক লাখ গজ কাপড়সহ মূল্যবান মেশিনারিজ ভষ্মীভুত হয়ে যায়। যার বাজার মূল্য প্রায় ৫ পাঁচ কোটি টাকার উপরে। এ বিষয়ে মাধবদী থানায় দুপুরে একটি ডায়েরী করা হয়েছে। যার নং ১৪/০১/২০১৮-৫৬১।

মাধবদী বাজার ফায়ার সার্ভিসের ইনচার্জ আরিফ আনোয়ার বলেন, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে মাধবদীর উক্ত মিলটিতে আগুন লাগার সংবাদ পেয়েই একটি ইউটি ঘটনাস্থলে পৌছায় পরে নরসিংদী ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিটও আমাদের সাথে এসে যোগ দেয়। দুটি ইউনিটের প্রায় তিন ঘন্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রনে আসে। এঘটনায় মিল কর্তৃপক্ষের তথ্য অনুযায়ী কয়েক কোটি টাকার মালামাল পুরে ছাই হয়ে যায় এবং প্রায় ৬ কোটি টাকার মালামাল উদ্ধার করা হয়।
তিনি আরো জানান, মাধবদী শহরের অধিকাংশ টেক্সটাইল মিল গুলোর আশেপাশেই পর্যাপ্ত পানি রির্জার্ভার নাই। যার কারনে বিকল্প পানির ব্যবস্থা করে অগ্নিকান্ড নিয়ন্ত্রণে আনতে অনেকাংশেই বেগ পেতে হয়। এই অনাকাক্সিক্ষত দেরীর জন্য অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্তরা ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তাদের প্রতি ক্ষিপ্ত হয়ে হয়ে উঠে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *