মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ১০:২৪ অপরাহ্ন

সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতে চাঁদপুরে কাঁচা বাজার খোলা মাঠে

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম / ৪০ পাঠক
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ১০:২৪ অপরাহ্ন

এ কে আজাদ, ব্যুরো প্রধান, বর্তমানকন্ঠ ডটকম, চাঁদপুর : দেশজুড়ে মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রভাব রোধে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করনে চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের নির্দেশক্রমে বাজার এখন মাঠে। চাঁদপুর পৌর এলাকায় করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় জনসমাগম রোধে অপাতত ৪টি বাজার স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

বাবুরহাট কলেজ মাঠে বসেছে সবজি বাজার, প্রশাসনের নির্দেশে বাজর কমিটির সহযোগিতায় এ বাজারগুলো স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

২২শে এপ্রিল বুধবার সরজমিনে বাজারগুলো ঘুরে দেখা যায়, বাবুরহাট বাজারটি বসেছে বাবুরহাট কলেজ মাঠে, শহরের পাল বাজার স্থানান্তরিত হয়েছে পৌর ঈদ গাঁ মাঠে, বিপনীবাগ কাঁচা বাজার স্থানান্তরিত হয়েছে চাঁদপুর সরকারি কলেজ মাঠে। ওয়ারলেস বাজার স্থানান্তরিত হয়েছে গাছতলা ব্রীজ সংলগ্ন এলাকায়।

এ ব্যপারে পালবাজারের ইজারাদার ব্রজ গোপাল পাল ও বাজার কর্তৃপক্ষ হারুন পাটওয়ারী, বাবুরহাট বাজারের ইজারাদার মোঃ হোসেন শেখ পৃথকভাবে জানান, বর্তমান পরিস্থিতিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য জেলা প্রশাসন ও পৌরসভার নির্দেশেই বাজারগুলো স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

সবজি, মাছ ও মাংসের বাজারে যাতে করে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত রাখা যায় সে ব্যাপারে, পরবর্তী নির্দেশনা না আসা পর্যন্ত এই বাজার এভাবেই চলবে। পৌর এলাকার প্রধান ৪টি বাজার স্থানান্তরিত করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে যে সকল বাজাগুলোতে জনসমাগম বেশী সে গুলোকেও স্থানান্তরিত করা হবে।

এদিকে ভ্রাম্যমান বাজার গুলো এখনো সড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে আগের মত দেখা গেছে। তবে আড়তদারদের স্থানান্তরিত বাজারের আওতায় নেওয়া হয়নি।

এ বিষয়ে জেলা বাজার কর্মকর্তা এন এম রেজাউল ইসলাম জানান, বাজার তদারকিতে সার্বক্ষণিক জেলা প্রশাসন, পুলিশ বিভাগ ও মার্কেটিং বিভাগের প্রতিনিধি থাকবে। স্থানান্তরিত বাজারগুলো আগামী রমজান মাস পর্যন্ত একইভাবে থাকবে। প্রতিদিন ভোর ৬ টা হতে বিকাল ৫টা পর্যন্ত এই সকল বাজারের কার্যক্রম চলবে। নির্দেশনা অমান্যকারীর বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ ব্যপারে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মাহমুদ জামান জানান, আমরা এখন পর্যন্ত শুধু শহরের সবজি বাজার, মাছ বাজার ও মাংসের বাজারগুলো স্থানান্তরিত করেছি। বাজারের আড়তদার ও মুদী দোকানগুলো স্ব অবস্থানেই থাকবে। ভ্রাম্যমাণ বাজারগুলো সড়কের উপরে থাকতে পারবে না। প্রয়োজনে অলিতে গলিতে সড়ক ছেড়ে ভিন্ন খোলা জায়গায় বসবে।

মূলত বর্তমান পরিস্থিতিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে গণজামায়েতরোধে বাজারগুলো নিয়ে স্থানান্তরের এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *