বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০২৪, ০৮:১৮ অপরাহ্ন

গৌরীপুর যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে অনাগত সন্তানের পিতৃপরিচয়ের দাবিতে মামলা

মো. হুমায়ুন কবির / ৪৬ পাঠক
বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০২৪, ০৮:১৮ অপরাহ্ন

সন্তানের পিতৃপরিচয়ের দাবিতে ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মো. সানাউল হকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন ৭ মাসের অন্তঃসত্ত্বা এক কলেজছাত্রী।

গত ১৬ জুন জেলা শিশু ও নারী নির্যাতন দমন বিশেষ আদালতে অভিযোগপত্র দায়ের করা হয়। আদালতের বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের দায়িত্ব প্রদান করেন।

ভুক্তভোগী ছাত্রী ও অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে ভুক্তভোগী ছাত্রী গৌরীপুরের একটি কলেজের শিক্ষার্থী। ২০১৭ সালে ২১ ডিসেম্বর ওই ছাত্রী গৌরীপুর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করতে আসলে সানাউল হকের সাথে পরিচয় হয়। এ সময় সানাউল ওই ছাত্রীকে জিডি করতে সহযোগিতা করার পাশাপাশি মোবাইল নম্বর নেন। ওই বছরের ২৯ ডিসেম্বর সানাউল হক ওই ছাত্রীকে ফোন করে বলেন তোমার জিডি ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দ (ডিবি) অফিসে তদন্ত চলছে তুমি এখানে চলে আস। পরে ওই ছাত্রী সেখানে গেলে সানাউল হক বলে যে, ডিবির অফিসার নেই চলো খাওয়া-দাওয়া করে আসি। পরে ময়মনসিংহের একটি হোটেলে নিয়ে ওই ছাত্রীকে সানাউল জোরপূর্বক ধর্ষণ করলে ছাত্রীটি কান্নাকাটি শুরু করলে তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখায় সানাউল। পরে ২০১৮ সালের ১০ সেপ্টেম্বর তারিখে পাঁচ লাখ টাকা দেনমোহর ধার্যের বিয়ের একটি কাবিননা।

এরপর থেকে সানাউল ওই ছাত্রীকে স্ত্রী পরিচয়ে বিভিন্ন জায়গায় বেড়াতে নিয়ে গিয়ে একত্রে বসবাস শুরু করলে ছাত্রীটি অন্তসত্ত্বা হয়ে পড়ে। অন্তসত্ত্বা ঘটনা জানতে পেরে সানাউল ছাত্রীর সাথে যোগাযোগ কমিয়ে দেন। গত ১২ মার্চ ওই ছাত্রী সানাউলের বাড়িতে গেলে সানাউল তাকে না চেনার ভান করে ও গর্ভের সন্তান অস্বীকার করে সানাউল। পরে কলেজছাত্রী সানাউলের দেয়া কাবিননামার সত্যতা যাচাই করতে ময়মনসিংহ নিকাহ ও তালাক রেজিস্ট্রারের কার্যালয়ে আবেদন করে জানতে পারেন কাবিনানামাটি বানোয়াট ও ভূয়া।

গত ১৬ জুন ওই ময়মনসিংহ জেলা শিশু ও নারী নির্যাতন দমনের বিশেষ আদালতের দ্বারস্থ হয়ে নালিশি আবেদন করেন। আদালত তা আমলে নিয়ে ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দেন।

ভুক্তভোগী কলেজ ছাত্রী বলেন, সানাউল আমার সরলতার সুযোগ নিয়ে আমার সাথে প্রতারণা করেছে। আমি শারীরিক ভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েছি। মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছি। আমার সাথে যে প্রতারণা ও অন্যায় করেছে আমি তার সুষ্ঠু বিচার চাই।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শনিবার উপজেলা যুবলীগের সভাপতি সানাউল হক বলেন, সব কিছু ষড়যন্ত্রমূলক। আমাকে রাজনৈতিকভাবে হেয় করতে একটি মহল এসব করছে।

ময়মনসিংহ পিবিআই এর পরিদর্শক ফিরোজ হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন ওই ছাত্রী অন্তসত্ত্বা হওয়ায় কাগজপত্র জমা দিয়েছে। ঘটনা তদন্ত চলেছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন জমা দেওয়া হবে ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *