মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০১:৩০ অপরাহ্ন

ঘটনাবহুল ‘১/১১’ আ.লীগ-বিএনপির শঙ্কা কাটেনি

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম / ৬৫ পাঠক
মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০১:৩০ অপরাহ্ন

নিউজ ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম,শুক্রবার, ১২ জানুয়ারী ২০১৮: বাংলাদেশে জরুরি অবস্থা জারির মাধ্যমে ‘সেনা সমর্থিত’ তত্ত্বাবধায়ক সরকার (১/১১) প্রতিষ্ঠার ১১তম বার্ষিকী ছিল গতকাল বৃহস্পতিবার। ২০০৭ সালের ১১ জানুয়ারি জরুরি অবস্থা জারি করা হয়। পরে ‘অন্তর্বর্তীকালীন সরকার’ গঠিত হয়ে দুই বছর দেশশাসন করে তারা। ওই দিনটি দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে বহুল আলোচিত-সমালোচিত। দিনটি ‘ওয়ান ইলেভেন’ হিসেবে পরিচিত।

২০০৭ সালের ১১ জানুয়ারি তৎকালীন রাষ্ট্রপতি ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদ দেশে জরুরি অবস্থা জারি করেন। এরপরই তার সরকার বিলুপ্ত করে তিনি বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. ফখরুদ্দীন আহমদকে প্রধান উপদেষ্টা নিয়োগ করে নতুন তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠন করেন।
রাজনৈতিক নেতাদের ভাষ্য, জরুরি অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে ক্ষমতায় এসে ওই সময়কার সরকার নিজেদের এখতিয়ারের বাইরে গিয়ে কাজ করেছে, যা নিয়ে অনেক সমালোচনাও হয়েছে। তবে ওই সময় নিয়ে দেশের প্রধান রাজনৈতিক দলগুলো এখন পর্যন্ত কোনো আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করেনি।

বিরোধী দলের সহিংস প্রতিবাদের মুখে ২০০৬ সালের শেষের দিকে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি ড. ইয়াজউদ্দীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান হন। তিনি ২০০৭ সালের ২২ জানুয়ারি নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি নেন। ওই নির্বাচন ‘সাজানো’ অভিযোগ তুলে প্রায় সবগুলো বিরোধী দল নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেয়। এই পরিস্থিতিতে দেশি-বিদেশি চাপের মুখে নতুন তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠন করেন ড. ইয়াজউদ্দিন। সেই সরকার গঠনের আগে জারি করা হয় জরুরি অবস্থা।

পরে ‘সেনা সমর্থিত’ ফখরুদ্দীন সরকার দেশে দুর্নীতি দমন অভিযান শুরু করে। একই সঙ্গে আওয়ামী লীগপ্রধান শেখ হাসিনা ও বিএনপিপ্রধান খালেদা জিয়াসহ বহু শীর্ষ রাজনীতিককে গ্রেপ্তার করা হয়।
আওয়ামী লীগ ও বিএনপির রাজনীতিবিদরা বলছেন, দেশের দুর্নীতি ও অনৈতিকতাকে সামনে এনে ফখরুদ্দীন সরকার একটা পরিবর্তন আনার কথা বলেছিল। কিন্তু যারা এগুলো করেছিল তারা কথা রাখতে পারেনি।

আরেকটি ১/১১’র আশঙ্কা আছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ওয়ান ইলেভেন থেকে আমরা শিক্ষা নিয়েছি, কিন্তু বিএনপি নেয়নি। সে কারণে ভয় আছে। আশঙ্কা আছে।’ গতকাল বৃহস্পতিবার আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানম-ির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সম্পাদকম-লীর সভা শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।
এদিকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘দেশে যেভাবে দুর্নীতি ও ব্যাংক জালিয়াতি হচ্ছে, এভাবে চলতে থাকলে ১/১১ আবার ঘটতে পারে। এমন পরিস্থিতিই ১/১১ সৃষ্টি করে।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *