বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০:০৯ পূর্বাহ্ন

পুরনো ভিডিও দিয়ে শিক্ষামন্ত্রীকে নিয়ে অপপ্রচার ॥ চাঁদপুরে নিন্দার ঝড়

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম / ২২ পাঠক
বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০:০৯ পূর্বাহ্ন

এ কে আজাদ, ব্যুরো প্রধান, বর্তমানকন্ঠ ডটকম, চাঁদপুর : মানুষ এতো জঘন্য নিকৃষ্ট হতে পারে তা কোনোভাবেই বিশ্বাস করা যায় না। দেশের একজন প্রভাবশালী এবং ন্যায়পরায়ণ মন্ত্রী, দলেরও একজন প্রথম সারির নেত্রী বাংলাদেশের সাবেক সফল পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং বর্তমানে এ যাবৎ পর্যন্ত সফলতার সাথে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত সফল শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনিকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে তার পুরনো একটি ভিডিও প্রকাশ করে জঘন্য মিথ্যাচার করেছে। এ জন্য চাঁদপুরের সকল পর্যায়ের মানুষ এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে। সর্বমহলে গ্রহণযোগ্য ক্লিন ইমেজের একজন সফল রাজনৈতিক ব্যক্তির নামে এমন মিথ্যা অপপ্রচার কোন মতেই গ্রহণ যোগ্য নয়। তার বিরুদ্ধে এই অপপ্রচার নিয়ে চাঁদপুরের অসংখ্য সাধারণ মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। সাধারণ মানুষের বক্তব্য হচ্ছে, তার মত একজন স্বজ্জন ব্যক্তি যদি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্লেক মেইলের শিকার হন, তাহলে সাধারণ মানুষ এ সকল কুচক্রী মহলের কাছে কি নিরাপদ?

যে ভিডিওটি প্রকাশ করা হয়েছে সেই ভিডিওটি হচ্ছে ২০১৮ সালে ডা. দীপু মনির চাঁদপুর শহরস্থ তাঁর বাসায় পহেলা বৈশাখের দিন শহরের সুশিল সমাজ তথা শিক্ষক, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের সদস্যদের দাওয়াত দিয়ে খাইয়েছেন। যা ওনাদের পারিবারিক বৈশিষ্ট প্রতি বছর দুই ঈদের পরে এবং নববর্ষ উপলক্ষে চাঁদপুরের সকল পর্যায়ের এবং সকল পেশার নেতৃস্থানীয়দের বাসায় দাওয়াত দিয়ে আপ্যায়ন করেন। প্রচলিত রাজনৈতিক নেতাদের মত তিনি নন। কথাবার্তায় আচরণে যথেষ্ট মার্জিত, আধুনিক। প্রচন্ড পরিশ্রমী একজন মানুষ হচ্ছেন ডা. দীপু মনি। অথচ এ বছরের বাংলা নববর্ষের ভিডিও বলে ২০১৮ সালের পুরনো ভিডিওটি চালিয়ে দিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন, লকডাউনে তিনি এটা কেমনে করলেন? ২০১৮ সালের ছবিটা এনে “কৃষানীর স্বপ্ন” নামে আইডি থেকে ২০২০ সালের পহেলা বৈশাখের দিন জনসমাগম ও আপ্যায়নের ছবি বলে পোস্ট দিয়েছে।

ডা. দীপু মনি নাকি বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউন ভেঙ্গে এভাবে জনসমাগম করে তাঁর বাসায় মানুষকে খাইয়েছেন। অথচ ২০১৮ সালের সেই দিন আমিও সেখানে উপস্থিত ছিলাম। চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এএইচএম আহসান উল্লাহসহ চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাংবাদিকবৃন্দ এমন জঘন্য অপপ্রচার কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

এই অপপ্রচারকারীকে দ্রত সময়ের মধ্যে খুঁজে বের করে গ্রেফতার করতে চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের প্রতি জোর দাবি জানিয়েছেন অনেকেই।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *