শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৪০ পূর্বাহ্ন

মাধবদী পৌরসভার কাউন্সিলর প্রার্থী হেলাল মাস্টারের আওয়ামীলীগে যোগদান নিয়ে সমালোচনা তুঙ্গে

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম / ৩১ পাঠক
শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৪০ পূর্বাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম: মাধবদী পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের জনপ্রিয় কাউন্সিলর ও মাধবদী শহর ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব সালাউদ্দিনের মৃত্যুতে তার শূণ্য পদে আগামী ২৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে উপ-নির্বাচন। উক্ত নির্বাচনে ছোট ভাইয়ের রাজনৈতিক ও সামাজিক জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগাতে পরিবারের পক্ষ থেকে সালাউদ্দিন কমিশনারের বড়ভাই মো: হেলাল উদ্দিন মাস্টার নির্বাচনে প্রার্থী হন। কিন্তু নির্বাচনে অংশগ্রহণের শুরুতেই গত ২২ ডিসেম্বর বর্তমান ক্ষমতাসীন লের মদ পেতে ছোট ভাইয়ের রাজনৈতিক আদর্শকে জলাঞ্জলী দিয়ে তিনি আওয়ামীলীগে যোগদান করেন।

এ নিয়ে মাধবদীর সর্বত্র এখন চলছে সমালোচনার ঝড় আর এই সময়েই তার পক্ষে সাফাই গেয়ে সমালোচনায় ঘি ঢাললেন সালাউদ্দিন কমিশনারের ঘনিষ্ঠজন হিসেবে পরিচিত মাধবদী পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও শহর যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো: শেখ ফরিদ। গত ২৩ ডিসেম্বর ৫নং ওয়ার্ডে আয়োজিত এক উঠান বৈঠকে অংশ নিয়ে হেলাল মাস্টারের পক্ষে প্রায় ২২ মিনিট বক্তব্য দিয়ে সাফাই গান এ নেতা।

তার দীর্ঘ বক্তব্যে সালাউদ্দিন কমিশনার ও হেলাল মাস্টারের বিভিন্ন গুণগান থাকলেও আওয়ামীলীগে যোগান নিয়ে তার মুখে কোন কথা শোনা যায়নি। এ নিয়ে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় অনেক বিএনপি নেতা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন বর্তমানে বিএনপির স্কংটাপন্ন মুহুর্তে লের পক্ষে স্থানীয় নেতারে জোড়ালো ভুমিকার পরিবর্তে তাদের গা বাঁচানো নীতি ও প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে ক্ষমতাসীন লের সঙ্গে আঁতাতের কারনে দলের অপূরণীয় ক্ষতি হচ্ছে।

এসময় শহিুল্লাহ নামে ৫নং ওয়ার্ডের এক ভোটার নব্য আওয়ামীলীগার হেলাল মাস্টারের পক্ষে সাফাই গাওয়ায় শেখ ফরিদ কমিশনারকে আওয়ামীলীগের দোসর বলেও অভিহিত করেন। তিনি বলেন নির্বাচনে পাশের আগেই যিনি নিজ স্বার্থের কথা ভেবে ভাইয়ের দীর্ঘ সময়ের রাজনৈতিক মতার্শকে বাদ দিয়ে ল পরিবর্তন করতে পারেন তাকে সালাউদ্দিন কমিশনারের জায়গায় শোভা পায়না। এছাড়াও এঘটনায় নতুন করে দুর্নীতির দায়ে নিজ কর্মস্থল মাধবী এসপি ইনস্টিটিউশন থেকে তার সাময়িক বরখাস্তের বিষয়টিও এখন মানুষের মুখে মুখে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *