বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৩:৫১ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম-
গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহত আরও ৩৮ ফিলিস্তিনি জেলেনস্কির হোমটাউনে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহত ৯ বিমান দুর্ঘটনায় ভাইস প্রেসিডেন্ট নিহত: মালাবিতে ২১ দিনের শোক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান হত্যা: বিচারের দাবীতে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে মহাসড়ক অবরোধ মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার অস্থিরতাকারীদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর হুঁশিয়ারি নাগরিক সমস্যা সমাধানে সরকার ও নাগরিকের অংশীদারিত্ব প্রয়োজন: তথ্য প্রতিমন্ত্রী বিনা কর্তনে সেন্সর ছাড়পত্র পেল ‘মুনাফিক’ আমাদের দিয়ে রান্না করাতো জলদস্যুরা, খেয়ে ফেলতো সবই যাতায়াতের দুর্ঘটনায় ক্ষতিপূরণ পাবে পোশাক শ্রমিকরা আলোচিত সংগীতশিল্পীসহ নিহত ২, পালিয়েও শেষ রক্ষা হয়নি বাসচালকের

মানবাধিকার লঙ্ঘন কমেছে খুলনা বিভাগে

বর্তমানকণ্ঠ ডটকম / ৫২ পাঠক
বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৩:৫১ পূর্বাহ্ন

নিউজ ডেস্ক,বর্তমানকণ্ঠ ডটকম,রোববার,০৭ জানুয়ারী, ২০১৮ : ২০১৬ সালের তুলনায় ২০১৭ সালে খুলনা বিভাগে মানবপাচারসহ মানবাধিকার লংঘনের ঘটনা সংখ্যাগতভাবে কমেছে। তবে, মানবাধিকার পরিস্থিতি উন্নত হয়েছে বলে মনে করার কিছু নেই। মানবাধিকার সংগঠন রাইটস যশোর শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য উপস্থাপন করে।
এতে বলা হয়, ২০১৬ সালে এ বিভাগে মানবপাচারের সংখ্যা ৫২৭ হলেও পরের বছর এ সংখ্যা দাড়িয়েছে ২৫৮-তে।

প্রেসক্লাব যশোরের কনফারেন্স রুমে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের নির্বাহী পরিচালক বিনয় কৃষ্ণ মল্লিক বলেন, পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত রিপোর্ট থেকে জানা যায়-২০১৬ সালে এ বিভাগে হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ৪৯০টি, পরের বছর তা কমে ২৮৮-তে দাঁড়িয়েছে। এছাড়া ধর্ষণে ঘটনা ঘটে ১৩৫, যা পরের বছর দাড়ায় ৭০-এ। এছাড়া অপহরণ ৪৭২, পরেরবার ১৯৪, পুলিশি নির্যাতন ও হয়রানির ঘটনা ছিল ৯৫, যা পরের বছর দাঁড়ায় ৪৭-এ, বিএসএফ কর্তৃক হত্যা ছিল ৭, তবে পরেরবার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮-এ। শিশু নির্যাতনের সংখ্যা ২০১৬ সালের চেয়ে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২৯-এ। এর আগের বার ছিল ১১১টি।

তিনি বলেন, রাইটস যশোর জাতীয়, আঞ্চলিক এবং স্থানীয় পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের ভিত্তিতে ডকুমেন্টেশন করে। এ প্রক্রিয়ায় মানবপাচার, হত্যা, ধর্ষণ, ডাকাতি, যৌনপীড়ন, পুলিশি নির্যাতন-হয়রানি, বিএসএফ কর্তৃক হত্যা, অপহরণ এবং নির্যাতন, সংখ্যালঘুদের প্রতি নির্যাতন, রাজনৈতিক সহিংসতাসহ ২৪টি বিষয়ে তথ্য সংরক্ষণ করে।

তিনি বলেন, সংখ্যাগতভাবে উল্লিখিত ঘটনা কম মনে হলেও প্রকৃতপক্ষে মানবাধিকার পরিস্থিতির তেমন উন্নতি হয়েছে বলে মনে হয় না। এই পরিস্থিতি থেকে উন্নয়নে সরকারের পাশাপাশি রাজনৈতিক দল, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন, সাংবাদিকসহ পেশাজীবী সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *